ফাইজা নামের বাংলা, আরবি/ইসলামিক অর্থ কি?

ফাইজা নামের বাংলা, আরবি/ইসলামিক অর্থ কি? ফাইজা কি ইসলামিক নাম? ফাইজা নামের জনপ্রিয় ব্যক্তি। ফাইজা নামের রাশি কি? ফাইজা নামের শুভ সংখ্যা কত? ফাইজা নামের মেয়েরা কেমন হয়?

হ্যালো বন্ধু, আপনাকে স্বাগত জানাই starbijay.com ওয়েবসাইটে। পৃথিবীতে যতগুলি নাম রয়েছে সেই নামগুলির কিছু-না-কিছু অর্থ রয়েছে। তেমনি ‘ফাইজা’ নামেরও বিশেষ কিছু অর্থ রয়েছে। তাই নামের অর্থ এই পোস্ট টিতে আলোচনা করা হয়েছে:

  1. ফাইজা নামের বাংলা, আরবি/ইসলামিক অর্থ কি?
  2. ফাইজা নামটি কোন ধর্মের?
  3. ফাইজা কি ইসলামিক নাম?
  4. ফাইজা নামটি কোন ভাষার শব্দ?
  5. ফাইজা নামের রাশি কি?
  6. ফাইজা নামের শুভ সংখ্যা কত?
  7. ফাইজা নামের শুভ রং কি?
  8. ফাইজা নামের শুভ দিন কি?
  9. ফাইজা নামের শুভ দিক কি?
  10. ফাইজা নামের জনপ্রিয় ব্যক্তি।
  11. ফাইজা নামটি কেন জনপ্রিয়?
  12. সন্তানের জন্য ফাইজা নামটি কেমন হবে?
  13. ফাইজা নামের মেয়েরা কেমন হয়?

ফাইজা নামের সম্পর্কে আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

ফাইজা নামের অর্থ কি

আপনার পরিবারে নতুন সদস্য জন্ম নিয়েছে কি? তার নাম ফাইজা রাখার কথা ভাবছেন? কিংবা আপনার বন্ধু বা আপনি নিজেই ফাইজা নামের মানুষ? সেই জন্য ফাইজা নামটির সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছেন? তো চলুন এক নজরে জেনে নেওয়া যাক ফাইজা নামের সম্পর্কে।

ফাইজা নামের অর্থ কি?

ফাইজা নামটি খুব সুন্দর এবং ভালো। বাংলাদেশে অনেক মেয়েদের নাম ফাইজা রাখা হয়েছে। এবং ফাইজা নামের মতোই ফাইজা নামের অর্থও খুব সুন্দর। ফাইজা নামের অর্থ হলো বিজয়িনী বা যিনি সাফল্য লাভ করেন।

ফাইজা নামের আরবি/ইসলামিক অর্থ কি?

ইসলামে সন্তানের সুন্দর নাম রাখার ব্যাপারে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। হাদিস এ এসেছে নিশ্চিত কেয়ামতের দিন প্রত্যেককেই ডাকা হবে তাদের নাম ও তাদের পিতার নাম ধরে। তাই প্রত্যেকের নাম ভালো ভাবে রাখা উচিৎ।

ফাইজা নামটি আরবি ভাষা থেকে এসেছে। ফাইজা নামের আরবি এবং ইসলামিক অর্থ হলো বিজয়িনী বা যিনি সাফল্য লাভ করেন।

ফাইজা নামের সংক্ষিপ্ত বিবরণ।

নামফাইজা
ইংরেজি বানানFaiza
লিঙ্গমেয়ে
নামের দৈর্ঘ্য3 বর্ণ এবং 1 শব্দ
আধুনিক নামহ্যাঁ
ছোটো নামহ্যাঁ
অর্থবিজয়িনী বা যিনি সাফল্য লাভ করেন
উৎসআরবি
রাশিধনু রাশি
শুভ সংখ্যা8
শুভ রংহলুদ
শুভ দিনবৃহস্পতি ও সোমবার
শুভ দিকউত্তর- পূর্ব দিক
শুভ রত্নপোখরাজ

ফাইজা নামের মেয়েরা কেমন হয়?

ফাইজা নামের মেয়েরা খুব সহজ সরল প্রকৃতির মানুষ হয়ে থাকে। এরা সবার সাথে মিশতে ভালোবাসে। এবং খুবই ভালো মনের মানুষ হয়ে থাকে। এরা যেকোনো বিষয়কে খুবই জটিল ভাবে দেখতে ভালোবাসে না সহজ-সরল ভাবে দেখতে ভালোবাসেন। খুবই সহানুভূতিশীল হয়ে থাকে এরা। অনেককে সাহায্য করতে ভালোবাসেন এবং সাহায্য করতে এগিয়ে যায়। অন্যের বিপদে এই নামের মেয়েরা অনেক বেশি সাহায্য করে থাকেন। এরা ভীষণ যত্নবান হয়ে থাকে। এবং যাদের সাথে যে কোনো সম্পর্ক হোক না কেন এরা বন্ধু এবং সকলকে খুবই যত্নবান ভাবেই ভালোবেসে থাকেন। এই নামের মেয়েরা পশু পাখি ভীষণ ভালবেসে থাকেন যেমন পোষা প্রাণী। এবং এরা শান্তিপূর্ণভাবেই বসবাস করতে ভালোবাসে। সবার সাথে মিলেমিশে থাকতে ভালোবাসে। উচ্চমানের পোশাক-পরিচ্ছদের এদের দারুন আকৃষ্ট করে। বিলাসবহুল পোশাক পরতে এরা খুবই ভালোবাসে। বন্ধুত্বে আশ্বাস বা বিশ্বাস এদের সবথেকে বড় জিনিস। এরা আস্থা রাখার মতো বন্ধু হয়ে থাকে। এদের ওপর বিশ্বাস রাখা যায় সর্বদাই। পরিবার সংসার বন্ধুদের প্রতি এদের দায়িত্ববোধ চরম থাকে এবং সমস্ত পরিস্থিতিতে এরা নিজের পরিবারের সাথে আগে চিন্তা ভাবনাই করে থাকে। তবে সময়ে সময়ে এরা একটু স্বার্থপর হয়ে থাকে। এটা সবার মধ্যেই একটু থেকে থাকে।

ফাইজা নামের জনপ্রিয় ব্যক্তি।

ফাইজা নামের জনপ্রিয় ব্যক্তি খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ফাইজা নামের রাশি কি?

বাংলা বর্ণমালার 33তম বর্ন হল ‘ ফ’ আর ফাইজা নামটির প্রথম অক্ষর ফ দিয়ে শুরু হয়। পৃথিবীতে যত মানুষ রয়েছে তাদের নামের প্রথম অক্ষর ফ দিয়ে শুরু হলে তাদের ধনু রাশি হয়। ফাইজা নামের রাশি হলো ধনু রাশি।

অবশ্যই পড়ুন: নামের প্রথম অক্ষর দিয়ে রাশি জানার উপায়

ফাইজা নামের শুভ সংখ্যা কত?

ফাইজা নামের শুভ সংখ্যা জানার আগে আপনেকে জানতে হবে সংখ্যা কি? সংখ্যা হলো পরিমাপের একটি মূর্তিহীন ধারণা। সংখ্যা প্রকাশের প্রতীকগুলিকে বলা হয় অঙ্ক। এর প্রকৃত উদাহরণগুলি হল 1,2,3,4,5(স্বাভাবিক সংখ্যা) এবং আরও অনেকগুলি সংখ্যা রয়েছে। ফাইজা নামের শুভ সংখ্যা হলো 8

ফাইজা নামের শুভ রং কি?

ফাইজা নামের শুভ রং কি? এই ব্রহ্মান্ডে অনেক রং (colour) রয়েছে, তার মধ্যে মৌলিক রং তিনটি, যথা – লাল, সবুজ এবং নীল। আর সাধারণ রং গুলি হলো – আসমানি, বাদামি, নীল, কালো, গাঢ় লাল, খয়েরি, পেষ্ট কালার(নীল সবুজ), ধূসর, সোনালি, সবুজ বর্ণ, সবুজ, বেগুনি নীল, ম্যাজেন্টা রং(নীললোহিত), লালচে খয়েরী, গাঢ় নীল, কমলা, জলপাই রং, গোলাপি, বেগুনি, লাল, জাফরান, আকাশি নীল, বেগুনি, সাদা, হলুদ রং, ইত্যাদি। ফাইজা নামের শুভ রং হলো হলুদ রং।

ফাইজা নামের শুভ দিন কি?

দিন হলো সময়ের একটি একক। সূর্য উঠা থেকে শুরু করে সূর্য অস্ত যাওয়ার পর থেকে পুনরায় সূর্য উঠা পর্যন্ত সময়কে দিন বলা হয়। এই ভাবে সাত দিন হওয়া কে বলা হয় এক সপ্তাহ, এবং এই সপ্তাহের 7 টি নাম রয়েছে, যথা – রবি, সোম, মঙ্গল, বুধ, বৃহস্পতি, শুক্র, শনি। আর এই দিন গুলির মধ্যে ফাইজা নামের শুভ দিন হলো বৃহস্পতি ও সোমবার।

ফাইজা নামের শুভ দিক কি?

আমরা দিক বলতে জানি দিক রয়েছে চারটি, যেমন – উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম, এই চারটি দিক সবথেকে বেশি প্রচলিত। কিন্তু বাংলায় দিক রয়েছে মোট দশটি, যথা – পূর্ব- East, পশ্চিম- West, উত্তর- North, দক্ষিণ- South, উত্তর-পূর্ব বা ঈশাণ – North-East, দক্ষিণ-পূর্ব বা অগ্নি – South-East, দক্ষিণ-পশ্চিম বা নৈঋত – South-West, উত্তর-পশ্চিম বা বায়ু – North-West, আকাশ বা উর্দ্ধ – Upward, পাতাল বা অধঃ – Downward.

ফাইজা নামের শুভ দিক হলো উত্তর- পূর্ব দিক।

ফাইজা নামটি কেন জনপ্রিয়?

ফাইজা নামটি খুব সুন্দর এবং ভালো। বাংলাদেশে অনেক মেয়েদের নাম ফাইজা রাখা হচ্ছে। এবং ফাইজা নামের জনপ্রিয়তা বেড়ে চলেছে।

ফাইজা নামটি কোন কোন ভাষায় ব্যবহার করা হয়?

ফাইজা নামটি আরবি ভাষা থেকে এসেছে। কিন্তু এই নামটি শুধুই আরবি ভাষাতেই ব্যবহার করা হয় না। নামটি আরবি, উর্দু, হিন্দি, বাংলা এই ভাষা গুলোতেও ব্যবহার করা হয়।

FAQ

ফাইজা নামটি কোন ভাষার শব্দ?

আরবি।

ফাইজা কি ইসলামিক নাম?

হ্যাঁ।

ফাইজা নামটি কোন ধর্মের?

ইসলাম ধর্মের।

ফাইজা নামটি কোন লিঙ্গের নাম?

মেয়ে।

ফাইজা নামটি মুসলমান মেয়েদের নাম হিসেবে ব্যবহার করা যাবে?

হ্যাঁ, অবশ্যই যাবে।

সন্তানের জন্য ফাইজা নামটি কেমন হবে?

খুব ভালো হবে।

শেষ কথা

আজ এই আর্টিকেলটি পড়ে জানতে পারলেন ফাইজা নামের বাংলা, আরবি/ইসলামিক অর্থ কি? এবং ফাইজা নামের বিশেষ কিছু তথ্য। আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্টে করে জানান। এবং ফাইজা নামের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলি আপনার বন্ধু এবং আপনার পরিবারের কাছে শেয়ার করে জানান।

Leave a Comment